“আত-তাক্বউইমুশ শামসি” মুসলিম রচিত একটি পূর্ণাঙ্গ সৌরসন

“আত তাক্বউইমুশ শামসী” এক অনবদ্য যুগান্তকারী তাজদীদ

“আত-তাক্বউইমুশ শামসি” মুসলিম রচিত একটি পূর্ণাঙ্গ সৌরসন

মুসলমান উনাদের সৌর সন ব্যবহারের প্রয়োজনীতা

“আত-তাক্বউইমুশ শামসি” মুসলিম রচিত একটি পূর্ণাঙ্গ সৌরসন

“আত তাক্বউইমুশ শামসী” অনুসরণের সুফল

“আত তাক্বউইমুশ শামসী” সনের মহাসম্মানিত উদ্ভাবক ও উনার মুবারক পরিচিতি

কুতুবুল আলম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, বাহরুল উলূম, আহলে বাইতি রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত খলীফাতুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি এই মুবারক তাক্বউইম (দিন গণনা পদ্ধতি) উদ্ভাবন করেন।

নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্রতম নূর মুবারক উনার সাথেই কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যমে ছানী, সুলত্বানুল আরিফীন, খলীফাতুল উমাম, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত খলীফাতুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার মহান সম্পৃক্ততা। উনার মহাসম্মানিত আব্বাজান আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন- যামানার খাছ লক্ষ্যস্থল, কুল-কায়িনাতের মহান ধারক-বাহক ও অভিভাবক, দুনিয়া ও আখিরাতের নাজাতের মূল উসীলা, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবে আ’যম, আল গাউছুল আ’যম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, হাবীবুল্লাহ, আখাচ্ছুল খাছ আওলাদুর রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম হযরত মুজাদ্দিদে আ’যম ক্বিবলা কা’বা আলাইহিস সালাম এবং উনার মহাসম্মানিতা আম্মাজান আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন- আন নি’মাতুল কুবরা আলাল আ’লাম, উম্মুল খাইর, ত্বাহিরা, ত্বইয়্যিবা, ছাহিবাতুল কাশফ ওয়াল কারামত, কুল-কায়িনাতের রহমত, বিশেষ করে নারী জাতির মুক্তির একমাত্র সোপান, নূরে মুকাররম, নূরে মদীনা, গুলে মদীনা, ক্বায়িম-মাক্বামে হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, আখাচ্ছুল খাছ আওলাদুর রসূল সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল উমাম কিবলা কাবা আলাইহাস সালাম। সুবহানাল্লাহ!

কাজেই মহাসম্মানিত আব্বাজান ও আম্মাজান আলাইহিমাস সালাম উনাদের উভয় দিক থেকে আখাচ্ছুল খাছ আওলাদুর রসূল, অর্থাৎ তিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নূরুন নাজাত মুবারক ও নূর মুবারক উনার সাথে মিশে একাকার হয়ে আছেন। সুবহানাল্লাহ!

মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন উনার এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সঙ্গে গভীর নিছবত মুবারক উনার বদৌলতে এবং মুজাদ্দিদে আ’যম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল উমাম, মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার নেক দুয়া এবং মুবারক পৃষ্ঠপোষকতায় উনার খাছ আওলাদ, আওলাদে রসূল, কুতুবুল আলম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, সাইয়্যিদুনা হযরত খলীফাতুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি এই মুবারক তাক্বউইম (দিন গণনা পদ্ধতি) রচনা করেন।

projects
projects

আত তাক্বউইমুশ শামসী সনের ইতিবৃত্ত কিতাব শরীফ

খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ্, মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমামুল আইম্মাহ, ক্বইয়ূমুয যামান, জাব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইয়্যুল আউওয়াল, সুলত্বানুন নাছীর, হাবীবুল্লাহ, জামিউল আলক্বাব, আওলাদু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মাওলানা, রাজারবাগ শরীফ উনার সম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলাহ্‌ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক পৃষ্ঠপোষকতায় প্রকাশিত হয়েছে "আত তাক্বউইমুশ শামসী সনের ইতিবৃত্ত" নামক কিতাব শরীফ। সম্মানিত কিতাবটি ক্রয় করতে যোগাযোগ করুন 02-8321240, এক্স (125)

৫০ বছরের শামসী তাক্বউইম

উদ্দেশ্য : প্রতিদিনের শামসী তারিখ নির্ণয় করা
দুইটি স্তর একত্রে : পূর্ণ চাকতি
যেভাবে ব্যবহার করতে হবে তা নিম্নে ধাপে ধাপে বর্ণনা করা হলো

প্রথম ধাপ

প্রথমেই আত্ব তাক্বউমুশ শামসী সন উনার এবং আত্ব তাক্বউমুশ শামসী মাস সম্পর্কে জানতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ

যে ঘরে সন দেয়া আছে, চাকতি ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে যে মাসের তারিখ জানতে চাওয়া হচ্ছে সেই মাসটির সঙ্গে সন মেলাতে হবে।

তৃতীয় ধাপ

মাস এবং সন মিলে যাবার পর সপ্তাহের বার লেখা ঘরের দিকে তাকাতে হবে।

চতুর্থ ধাপ

সেই বারের নীচে তারিখ দেয়া আছে। সেখান থেকে আপনি জেনে নিতে পারবেন আপনার কাঙ্খিত তারিখ।

পঞ্চম ধাপ

মনে রাখতে হবে প্রতি মাসে শামসী সনের সাথে ঈসায়ী সনের ১ দিন থেকে ২ দিনের পার্থক্য থাকে। অর্থাৎ শামসী মাসের প্রথম ১ বা ২ দিনের সাথে ঈসায়ী মাসের শেষ ১ বা ২ দিন মিলে যায়।

ক্রয় করুন

রাজারবাগ শরীফ থেকে প্রকাশিত হয়েছে "৫০ বছররের শামসী তাক্বউইম" নামক একটি চাকতি। ক্রয় করতে যোগাযোগ করুন 02-8321240, এক্স (125)

আত-তাক্বউইমুশ শামসী উনার সফটওয়ার ডাউনলোড করুন



“আত তাক্বউইমুশ শামসী” সেমিনার

ভেন্যু: জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা।

relationship